মানুষের কত রকমের বন্ধু থাকে। কেউ কেউ আবার প্রাণী পালন করে এবং তাদেরকেই বন্ধু মনে করে। তাই বলে সাপও মানুষের বন্ধু হতে পারে! তাও আবার বিষাক্ত সব সাপ। হ্যা সাপই বন্ধু ৭ বছর বয়সী দেবেশ আদিবাসীর।

দেবেশ থাকে ভারতের মধ্য প্রদেশের প্রত্যন্ত এক গ্রামে। গত চার বছর ধরে দেবেশ গ্রামের নিকটস্থ জঙ্গলে যাতায়াত করে এবং নিয়মিতই সে জঙ্গলে যায় এবং ফিরে আসে বিষাক্ত সব সাপ নিয়ে। ভয়ঙ্কর বিষধর সেই সব সাপ দেখলেই যে কারো পিলে চমকে যাবার কথা। অথচ আজব বিষয় হল দেবেশ অনায়াসে তাদের নিয়ে বসবাস করছে। এই সব সাপ কেন তার কাছে এভাবে পোষ মানে, সেটা এক বিরাট রহস্য! মাত্র ৩ বছর বয়স থেকে সে সাপের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুলেছে। এই সব বিষয় দেখতে দেখতে গ্রামবাসীর কাছে তা সহজ-সাধারণ দৃশ্যে পরিণত হয়েছে। দেবেশের বাবা-মাও এখন আর এটি নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামাননা।

দেবেশ নিয়মিতই সাপদের নিয়ে খেলা করে। তাদের সাথে খায় ও ঘুমায়। তারপর তাদের জঙ্গলে নিয়ে ছেড়ে দেয়। পরদিন আবার নতুন সাপ নিয়ে আসে। এভাবেই চলছে তার দিনলিপি। এ বিষয়ে মুম্বাইয়ের এক বিখ্যাত মনোবিজ্ঞানী জানিয়েছেন, ‘দেবেশের বিষয়টি যথেষ্ট অস্বাভাবিক। দেখে সাধারণ মনে হলেও এটি কোনো সাধারণ ঘটনা নয়। সে সাপগুলোর সাথে স্বাভাবিক সম্পর্ক গড়ে তুলেছে। হয়তো তারা তাকে কামড় দিচ্ছেনা। তার মানে এই নয় যে, তারা কখনও তাকে কামড়াবেনা। সার্বক্ষণিত সাপ নিয়ে থাকা তার মানসিক স্বাস্থ্যের জন্যে মোটেও ভালো নয়। এছাড়া যেকোনো দিন সাপের দংশনে মারাত্মক দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। এছাড়া মানসিক বৈকল্যের ঝুঁকিও রয়েছে।’