হরিপুর (ঠাকুরগাঁও) সংবাদদাতা : হরিপুরে ঐতিহ্যবাহী পাথর কালীর মেলার তারিখ ৭ ডিসেম্বর শুক্রবার নির্ধারণ করা হয়েছে।
 
বুধবার দুপুর ১২টার সময় মেলা কমিটি এ সময় নির্ধারণ করেন ।
 
মেলার সভাপতি নগেন কুমার পাল জানান, উৎসব মুখোর পরিবেশে হরিপুর সীমান্তে অনুষ্ঠিত হবে দুই বাংলার মানুষের মিলন মেলা । পাথর কালীর মেলা ঘিরে উৎসবের যেন কমতি নেই হরিপুর  উপজেলার সীমান্ত পারের মানুষের। ভারতে বসবাসরত স্বজনদের একনজর দেখতে এই্ দিনের অপেক্ষার প্রহর গুনছে বাংলাদেশি স্বজনরা। বিএসএফ এর পক্ষ থেকে অনুমতি পাওয়ার পর থেকেই হরিপুর উপজেলার গোবিন্দ পুর সীমান্তে কাটাতারের কাছে গিয়ে নিজ নিজ স্বজনদের দেখে অনেকে কান্নায় ভেঙ্গে পরেন। এসময় সুখ দুঃখের কথা ও দু দেশের খাদ্য বস্ত্রও স্বজনদের মধ্যে আদান প্রদান করে।
 
হাজার হাজার মানুষের ভিড়ে পরিনত হয় মিলন মেলা। আর মিলন মেলাকে ঘিরে জিনিসপ্রত্র নিয়ে অস্থায়ী শতাধিক দোকানপাঠ বসে প্রসরা সাজিয়ে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে নলকুপ বসিয়ে বিশুদ্ধ পানি, টয়লেট ও বসার ব্যবস্থাও করে দেয়া হয়।
 
হরিপুর উপজেলার ৬নং ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান সরকার জানান, এবার দ্বিতীয়  বারের মতো বিশুদ্ধ পানির জন্য নলকুপ, টয়লেট ও বসার ব্যবস্থা করা হবে। আমরা সরকারের কাছে দাবি করছি একদিনের জন্য হলেও সীমান্ত পাড়ে ব্যবসা বাণিজ্যের ব্যবস্থা করতে উদ্যোগ গ্রহন করবেন।
 
এ বিষয়ে হরিপুর উপজেলার পূজা উৎযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক উমাকান্ত ভৌমিক জানান, অন্যান্য বারের মত এবারও গোবিন্দ পুর সীমান্তে পাথর কালীর মেলা উপলক্ষে দুই বাংলার স্বজনদের কথা বলার সুযোগ থাকবে