মোঃ নুরনবী ইসলাম, নিজস্ব প্রতিবেদক

জীবনে চলার পথে আসে নানা বাঁধা। পথচলার শুরু হতে না হতেই থমকে দাঁড়াতে হয় কখনও কখনও। বুদ্ধিমত্তা আর কৌশল প্রয়োগ করে পেরিয়ে যেতে হয় সেই বাঁধা। অক্লান্ত পরিশ্রম বয়ে আনে সেই পথে সফলতা। আর এই পথের শেষ দেখতে যারা এগিয়ে যায় তারা অন্য সবার থেকে বেশী আত্মবিশ্বাসী হয়। এগিয়ে থাকে তারুন্যের যাত্রায়। সেই সাথে এই মানুষগুলো হয় অন্যের জন্য অনুপ্রেরণা। তেমনই একজন আত্ববিশ্বাসী তরুন সফল ব্যবসায়ী  মোঃ বাবর আলী শাহ্।

তিনি দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার ভাবকি ইউনিয়নের কুমড়িয়া গ্রামের মৃত উমর আলীর একমাত্র ছেলে। তাঁর বাবা ছিলেন একজন হলুদ ব্যবসায়ী। ২০১০ সালে বাবার মৃতের পর তিনি এসএসসি পাশ করেই সেই হলুদের ব্যবসা শুরু করে পরিবারের দায়িত্ব কাঁধে নেন। এরপর থেকেই সততা ও ন্যায়ের সাথে ব্যবসার পরিধি বৃদ্ধি করেন।

বর্তমানে তিনি কাচিনীয়া বাজারের ভিতরে সরকারী হাটশেডে হলুদ, আদা, মরিচ, পেঁয়াজ ও হরেক রকমের মশলার ব্যবসা করেন। যা থেকে প্রতিমাসে ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা উপার্জন হয়।

তাঁর বর্তমানে মা, স্ত্রী ও ২ ছেলে নিয়ে সংসার। তিনি এই দোকান করেই সংসার পরিচালনা করেন। এছাড়াও তাঁর কাছে সহায়তার জন্য কেউ গেলে কোনদিন কাউকে খালি হাতে ফেরত দেন নি।

সফল ব্যবসায়ী মোঃ বাবর আলী শাহ্ বলেন, বাবার সততা ও আদর্শে ব্যবসা করি। কখনো খাতায় বাকি টাকা লিখি না। কেউ কোন খরচ বাকি নিয়ে গেলে স্বেচ্ছায় দিয়ে যায়। পরবর্তীতে যেন এভাবেই চলতে পারি এজন্য সকলে দোয়া করবেন।