মোঃ নুরনবী ইসলাম, নিজস্ব প্রতিবেদক

দিনাজপুরের খানসামায় পুকুর ও বাস্তুবাড়ির জমি নিয়ে মারামারিতে ৫ জন নারী গুরুতর জখম ও আহত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি উপজেলার আঙ্গারপাড়া ইউনিয়নের ছাতিয়ানগড় গ্রামের মশিয়ার পাড়ায়। আহতরা বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ঘটনায় খানসামা থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে ভূক্তভোগী পরিবার।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পুকুর ও বাস্তুবাড়ীর জমির বিরোধে গত ৫ জুলাই সকাল ১১ টায় একই এলাকার মোকারম আলীর নেতৃত্বে তার ভাই মহসিন আলী, স্ত্রী সাহিনা বেগম, ভাবি ফরিদা বেগম ও মা মাসুদা বেওয়া লাঠি সোটা ও ইট নিয়ে অভিযোগকারী জসিম উদ্দীনের খুলিয়ানে এসে তার মা জোসনা বেগমের উপর চড়াও হয়ে লাঠি দিয়ে মাথায়, বুকে, দুই পাজোরে আঘাত করে। এতে তিনি চিৎকার করলে তাকে উদ্ধারের জন্য অভিযোগকারীর স্ত্রী উম্মে কুলসুম, চাচাত ভাইয়ের স্ত্রী জাহানারা বেগম, বড়মা সুলতান বেগম ও দাদী কাছুয়া বেওয়া এগিয়ে আসলে তাদেরকেও এলোপাথারি মারপিট করে ও তার স্ত্রী ও ভাবিকে বিবস্ত্র করে শ্লীলতাহানী ঘটায়। খবর পেয়ে অভিযোগ কারী ও তার পিতা বাড়িতে আসলে প্রতিবেশীদের সাথে নিয়ে তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ব্যাপারে আঙ্গারপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তফা আহমেদ শাহ্ বলেন, মোকারম একজন উচ্ছৃঙ্খল ও বেপড়োয়া ছেলে। এর আগেও তার বিরুদ্ধে কয়েকবার তার নিজের মা ও বড় আব্বা নির্যাতনের অভিযোগ করেছিল। পরে তাকে গ্রাম পুলিশের মাধ্যমে ধরে এনে সালিশ করা হয়েছিল এবং ভবিষ্যতে যাতে উচ্ছৃঙ্খলতা ও বেপড়োয়া আচরণ কারো সাথে না করে এজন্য মুচলেকা নেওয়া হয়েছিল।

খানসামা থানা অফিসার ইনচার্জ শেখ কামাল হোসেন বলেন, এ ঘটনায় অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনাটি তদন্ত করে সত্যতা পেলে মামলা রেকর্ড করে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।