মোহাম্মদ মানিক হোসেন:

দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে উত্তরাধিকারি শুধুমাত্র ছেলে সন্তান না থাকায় গভীর রাতে ভাড়াটিয়া লোকজন এনে আপন বড় ভাইয়ের পৈত্রিক জমির উপর পাঁচতলা ভিত্তির তৈরী করা বিল্ডিং বাড়িতে ভাংচুর চালিয়েছে আপন ছোট ভাইরা।
ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল রোববার গভীর রাতে উপজেলার আব্দুল ইউনিয়নের ঘুঘুরাতলী মোড়ে রাণীরবন্দর সড়কের রাস্তার পাশে।

জানাগেছে, মৃত খোদাবকস মন্ডলের ছয় ছেলের দ্বিতীয় ছেলে আব্দুল ওয়াহেদ শাহ্ । বাবার দেয়া ছয় ভাইর মাঝে পৈত্রিক ৯০ শতক ভিটামাটির মধ্যে রাস্তাসহ ১৫ শতক জমি ভাগ পান তিনি। সেখানে পাঁচতলা ভিত্তি দিয়ে তৈরী করেছিলো নিজেদের একটি বিলিং বাড়ি। বাড়ির একতলার কাজ সর্ম্পূন করা হয়েছিলো। কিন্তু আব্দুল ওয়াহেদ শাহ্ দুই মেয়ে ও কোন ছেলে সন্তান না থাকায় দীর্ঘদিন যাবত তার আপন ছোট ভাই সামসুল আলমসহ বাকি তিন ছোট ভাই তাদেও বাড়ির জমি তাদের দাবি করে আসতেছে। বিভিন্ন সময়ে আব্দুল ওয়াহেদ শাহ্ এর সাথে দীর্ঘদিন ধরে ভাইদের জমিসংক্রান্ত ভাগাভাগির জেরে ঝঁগড়া বিবাদের সৃষ্টি হয়ে আসছিলো। এরি পেক্ষিতে গতকাল রোবাবার রাত ২ টার দিকে ছোট ভাই সামসুল আলম শাহ্সহ অন্য ভাইয়েরা মিলে ভাড়াটিয়া লোকজন টিক করে বিলিং বাড়িটির আরসিসি পিলার কেটে দেয় ও চারদিকের ইটের দেয়াল ভেঙে দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় ভাংচুর চালায়। এ সময় আব্দুল ওয়াহেদ শাহ এর বড় মেয়ে মোছা: আরিফা খাতুন ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে সহযোগিতা চাইলে সেখানে পুলিশ এসে উপস্থিত হয়। পরে তারা সবাই পালিয়ে যায়।

আব্দুল ওয়াহেদ শাহ এর বড় মেয়ে আরিফা খাতুন অভিযোগ করে বলেন, আমার কোন ভাই না থাকায় আমার দাদার দিয়ে যাওয়া বাবার ভাগের পৈত্রিক সম্পত্তির উপর আমার ছোটা চাচা সামসুল আলম শাহ্, আব্দুল রফিক শাহ্, সাইদুল ইসলাম,আমিনুল ইসলাম অনেকদিন ধরে লোভ করে আসতেছে। আমাদের জমির উপর কোন কিছু করতে গেলেই তারা আমাদের সাথে ঝগড়া বিবাদের সৃষ্টি করে। আমার ভাই না থাকায় আমরা কোন জমি পাবো না বলে সব জমি নিজেদের দাবি করে আসতেছে। কালকের রাতের ঘটনার পরেও পরবর্তীতে আবারো আমাদের বাড়িতে হামলা চালাবে বলে হুমকি প্রদান করছে। তাই তিনি এ বিষয়ে যতাযথ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন এবং তিনি আরো জানান, তাদের বিরুদ্ধে আইনের ব্যবস্থা নিতে বিভিন্ন জায়গায় অভিযোগ দাখিল করে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এ বিষয়ে চিরিরবন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (্ওসি) সুব্রত কুমার সরকার জানান, ঘটনাস্থলে আমি রাতেই গিয়েছিলাম বাড়ি ভাংচুর দেখেছি। ভুক্তভোগী পরিবার অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।