মানিক হোসেনঃ

সবাইকে কাঁদিয়ে দিনাজপুর জেলার সবচেয়ে বেশি বয়স্ক বৃদ্ধা চিরিরবন্দরের মোমেনা বেগম ওরফে ময়না বেগম ১৩৫ বছর বয়সে বার্ধক্যজনিত কারণে নিজ বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেছেন।

গতকাল শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার আব্দুলপুর ইউনিয়নের মামুদপুর গ্রামের স্বামীর বাড়িতে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। অাজ শনিবার বাদ যোহর নামাজের পর পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

মৃত্যুকালে তার ৫ ছেলে ও ২ মেয়ের মধ্যে ১ ছেলে ও ২ মেয়ে জীবিত রয়েছেন। তার ৪ ছেলে মারা গেছেন। তার জীবিত মেয়ের বয়সও ৯০ বছরের উপরে।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, প্রবীণ বৃদ্ধা মোমেনা বেগমের বয়স ১৩৫ বছর। মরহুমের ছোট নাতি কবির হোসেন দাবি করেন ভোটার আইডি কার্ডে বয়স ১২০ বছর। তবে তিনি ভোটার আইডি কার্ড খুঁজে দেখাতে পারেনি।

জেলার সবচেয়ে প্রবীণ বৃদ্ধা মোমেনা বেগমের মৃত্যুর সংবাদে এলাকার মানুষ এক নজর দেখতে তার বাড়িতে ভিড় করছেন। বয়স্ক হলেও তিনি নামাজী ও পর্দানশীল ব্যাক্তি ছিলেন বলে জানান এলাকাবাসী।

স্থানীয়রা এবং মরহুমের ছোট নাতি কবির হোসেন (৪৫) জানান, মোমেনা বেগম ময়নার ২০ বছর বয়সে চিরিরবন্দর উপজেলার আব্দুলপুর ইউপির মামুদপুর গ্রামের আগুনিয়াপাড়ার ফজলার রহমান আগুনিয়ার সাথে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। তিনি ব্যক্তিগত জীবনে ৭ সন্তানের জননী ছিলেন। বড় মেয়ে লতিফন নেছার বর্তমান বয়স ৯৫ এবং ছোট ছেলে আজিজার রহমানের বয়স ৬০ বছর। মৃত্যুর কিছুদিন পূর্বেও তিনি টিউবওয়েলের পানি তোলা, তরকারি কাটার কাজ করতে পারতেন। তিনি চশমা ছাড়াই সুঁচের মধ্যে সুতো দিতে পারতেন। তিনি চলাফেরাসহ পরিবারের সকল কাজকর্ম অন্যের সহযোগিতা ছাড়াই করতে পারতেন।