দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় অভ্যন্তরীণ আমন ধান সংগ্রহের লক্ষ্যে উপজেলার প্রান্তিক চাষিদের মাঝ থেকে লটারির মাধ্যমে সরকারিভাবে ধান ক্রয়ের জন্য চাষি নির্বাচন করা হয়েছে। এবার ২৫  হাজার ৯৩৪ জন চাষির মধ্যে ১৮৮৮ জন চাষিকে নির্বাচন করা হয়। রবিবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে দিনাজপুর ৬ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য শিবলী সাদিক লটারীর মাধ্যমে কৃষক নির্বাচন করেন।

জানা গেছে, বিরামপুর চরকাই খাদ্যগুদামে এবার ২৬ টাকা কেজি দরে ১৮৮৮ মেট্রিকটন ধান ক্রয়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। উপজেলার একটি পৌরসভা ও ৭টি ইউনিয়নে কৃষি কার্ডধারী ২৫ হাজার ৯৩৪ জন কৃষক রয়েছে। এই বিপুলসংখ্যক কৃষকের নিকট থেকে সরাসরি ধান ক্রয় সম্ভব না হওয়ায় লটারির মাধ্যমে ১৮৮৮ জন প্রান্তিক কৃষক নির্বাচন করা হয়। নির্বাচিত কৃষকগণ এক টন হারে ধান সরকারি গুদামে বিক্রি করতে পারবেন।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, এ বছর উপজেলায় ১৭ হাজার ৫ শ হেক্টর জমিতে আমন ধানের আবাদ করা হয়েছে। ৮৬ হাজার ৬৬৪ মেট্রিকটন ধানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। উপজেলায় কৃষক রয়েছেন ২৫ হাজার ৯৩৪ জন।

লটারীর মাধ্যমে চাষি নির্বাচন উপলক্ষে উপজেলা অডিটরিয়ামে ইউএনও তৌহিদুর রহমানের সভাপতিত্বে কৃষক উদ্বুদ্ধকরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর ৬ আসনের এমপি শিবলী সাদিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান খায়রুল আলম রাজু, পৌরমেয়র লিয়াকত আলী সরকার, ভাইস চেয়ারম্যান মেসবাউল ইসলাম মন্ডল মেসবা, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোস্তাফিজুর রহমান, চরকাই খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রায়হান কবীর, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নিকসন চন্দ্র পাল, বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও কৃষকবৃন্দ।