ক্রিকেট অনিশ্চয়তার খেলা! যেকোনো সময়ে যেকোনো কিছুই ঘটে যেতে পারে। যেমন গত ইংল্যান্ড ক্রিকেট বিশ্বকাপের কথা, ইংল্যান্ড বনাম নিউজিল্যান্ডের ফাইনাল ম্যাচটি ড্র হয়। পরে সেটি গড়ায় সুপার ওভারে। সেখানেও ম্যাচটি ড্র হয়। পরে অবশ্য বাউন্ডারি বিবেচনায় ওই বিশ্বকাপের স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।   

এবার তার চেয়েও লঙ্কাকাণ্ড ঘটে গেছে ক্রিকেটের ২২ গজের মাঠে। শূন্য রানে আউট হয়ে ফ্যাভিলিয়নে ফিরে গেছেন ১০ ব্যাটসম্যান।
হ্যাঁ, অবিশ্বাস্য ঠেকলেও এমনটাই ঘটেছে মুম্বাইয়ের স্কুল ক্রিকেটে। ৭৬২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে একটি দল অলআউট হয়ে গেছে মাত্র ৭ রানে! এই ৭ রানই এসেছে অতিরিক্ত থেকে। একজন ‍শূন্য রানে অপরাজিত ছিলেন।

খেলা চলছিল হ্যারিস শিল্ডের ফার্স্ট রাউন্ড নকআউট ম্যাচের। মুম্বইয়ের আজাদ ময়দানে মুখোমুখি হয়েছিল অন্ধেরির চিলড্রেন্স ওয়েলফেয়ার স্কুল ও বোরিবলির স্বামী বিবেকানন্দ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল (এসভিআইএস)।

প্রথমে ব্যাট করে এসভিআইএস ৩৯ ওভারে মাত্র চারটি উইকেট হারিয়ে তোলে ৬০৫ রান। যার মধ্যে মিত মায়েকার একাই করে ১৩৪ বলে করেন অনবদ্য ৩৩৮ (৫৬টি চার ও ৭টি ছক্কা)।

নির্ধারিত তিন ঘণ্টায় চিলড্রেন্স ওয়েলফেয়ার স্কুলের বল করার কথা ছিল ৪৫ ওভার। কিন্তু সেই সময়ের মধ্যে ৬ ওভার কম করার জন্য তাদের উপর আরও ১৫৬ রান চাপে। চিলড্রেন্স ওয়েলফেয়ার স্কুলের সামনে ৭৬২ রানের লক্ষ্য দাঁড়ায়।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে স্বাভাবিকভাবেই চাপে ছিল চিলড্রেন্স ওয়েলফেয়ার স্কুলের খেলোয়াড়রা। তারা একের পর এক শূন্য রানে আউট হতে থাকেন। একজনই রানের খাতা খুলতে পারেননি। ওয়েলফেয়ার স্কুলের ব্যাটসম্যানরা ক্রিজে টিকতে পেরেছেন মাত্র ৬ ওভার। এই ৬ ওভারের মধ্যে এসভিআইএস-এর বোলাররা ৭ রান অতিরিক্ত দেয়, ৬টি ওয়াইড ও একটি বাই রান।