নিজস্ব প্রতিবেদক
নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার জনপ্রিয় ফেসবুক গ্রুপ শিক্ষানগরী সৈয়দপুরে শুরু হচ্ছে মাসিক গল্প লেখা প্রতিযোগিতা। লেখালেখি করা নবাগত নবাগত তরুণদের প্লাটফর্ম গড়ে দেওয়ার প্রত্যয়ে আগামী মাস থেকে শুরু হচ্ছে এই প্রতিযোগিতা।

প্রতিযোগিতার নিয়ম অনুযায়ী ২১ হাজার পাঠকের শিক্ষানগরী সৈয়দপুর গ্রুপে প্রতি মাসের ১ তারিখ থেকে ২৭ তারিখ পর্যন্ত গল্প পোষ্ট করা যাবে। ফলাফল ঘোষণা করা হবে প্রতি মাসের শেষদিন। প্রতিযোগিতায় নির্বাচিত সেরা গল্প বিভিন্ন ম্যাগাজিন ও অনলাইন পত্রিকায় প্রকাশিত করা হবে। সেই সাথে বিজয়ীকে শিক্ষানগরী সৈয়দপুর পরিবারের পক্ষ থেকে আকর্ষণীয় পুরস্কারে পুরস্কৃত করা হবে।

২৬ তারিখ শুক্রবার শিক্ষানগরী সৈয়দপুর’র এডমিন স্বপ্নিল কাকন এক ফেসবুক স্টাটাসে প্রতিযোগিতার বিভিন্ন দিকবেদিক তুলে ধরেন। নিম্নে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার ক্ষেত্রে বিভিন্ন শর্তসমূহ উল্লেখ করা হলো:

১। নিজের স্বরচিত লেখা শিক্ষানগরী সৈয়দপুর গ্রুপে পোস্ট করতে হবে। অবশ্যই লেখকের নাম উল্লেখ করতে হবে।
২। প্রতি মাসের ১ তারিখ থেকে ২৭ তারিখ পর্যন্ত গল্প পোষ্ট করা যাবে। মাসের শেষদিন শিক্ষানগরী সৈয়দপুর গ্রুপে পোস্টের মাধ্যমে সেরা গল্প ও লেখকের নাম ঘোষণা করা হবে।
৩। লেখার বিষয় যেকোন। তবে কোন বিতর্কিত বিষয় নিয়ে লেখা গল্প প্রতিযোগিতায় গ্রহণযোগ্য নয়। সামাজিক ও শিক্ষণীয় গল্পকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।
৪। লেখা পোস্টের আগে অবশ্যই হ্যাস ট্যাগ দিয়ে #মাসিক_গল্প_লেখা_প্রতিযোগিতা উল্লেখ করতে হবে।
৫। লেখা যাছাইবাছাই ও সেরা নির্বাচিত করার ক্ষেত্রে কারো কোন হস্তক্ষেপ বা সুপারিশ গ্রহণযোগ্য নয়। শিক্ষানগরী সৈয়দপুর পরিবার যাছাইবাছাই ও মান বিবেচনায় সেরা একটি গল্প নির্বাচন করবে।
৬। যাছাইবাছাইয়ের ক্ষেত্রে সেরা পাঁচটি গল্প নির্বাচন করা হতে পারে। সেক্ষেত্রে প্রথম স্থান লাভ করা লেখাটিই সেরা গল্প হিসেবে বিবেচিত হবে।
৭। প্রতিযোগিতায় বিজয়ীর লেখা বিভিন্ন ম্যাগাজিন ও অনলাইন পত্রিকায় প্রকাশিত করা হবে। পাশাপাশি বিজয়ীকে শিক্ষানগরী সৈয়দপুর পরিবারের পক্ষ থেকে উপহার দেওয়া হবে আকর্ষণীয় পুরস্কার।

শিক্ষানগরী সৈয়দপুর গ্রুপের এই এডমিন পোস্টের মাধ্যমে আরো উল্লেখ করেন, “এখনকার যুগে আমাদের সময় কাটে ইউটিউব, ফেসবুক, ভাইবার সহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। শিক্ষার্থীরা পড়াশোনার বাইরে আজকাল কয়টাই বা সাহিত্য কেন্দ্রীক বই পড়ে? পরীক্ষার খাতা ছাড়া কতোটুকুই বা সৃজনশীল চর্চা করে? এ কারনে আমরা দিনেদিনে হচ্ছি সাহিত্য বিমুখ। সাহিত্য চর্চা করা নবাগত কবি/সাহিত্যিকরাও আজ লেখার আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে। পাঠকরাও আজ মানসম্মত লেখার অভাবে সাহিত্য থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। তাই আমরা শিক্ষানগরী সৈয়দপুর পরিবার সাহিত্যচর্চা করা তরুণদের একটা প্লাটফর্ম গড়ে দিতে চালু করতে যাচ্ছি এই প্রতিযোগিতা।”

নীলফামারীর সৈয়দপুরে জনপ্রিয়তা পাওয়া শিক্ষানগরী সৈয়দপুর গ্রুপ সবসময় চায় সৃজনশীলতার বহিঃপ্রকাশ। প্রতিটা মানুষের লুকায়িত সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ। তাইতো গ্রুপ পরিচালকদের এই সময়োপযোগী উদ্দ্যোগ। ধাপেধাপে সাপ্তাহিক কবিতা লেখা ও কুইজ প্রতিযোগিতা সহ বিভিন্ন শিক্ষামূলক কর্মকান্ড আয়োজন করার পরিকল্পনা রয়েছে শিক্ষানগরী সৈয়দপুর পরিবারের।