এমপিওভুক্ত মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষকদের বার্ষিক পাঁচ শতাংশ প্রবৃদ্ধি ও বৈশাখী ভাতার জন্য প্রয়োজনীয় বরাদ্দ চেয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছে প্রস্তাব পাঠাচ্ছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। আজ রোববার (১৮ নভেম্বর) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাদরাসা ও কারিগরি বিভাগের প্রস্তাবটি অনুমোদন করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। আজ বিকেলে অথবা আগামীকাল সোমবার প্রস্তাবটি অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হতে পারে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাধিক সূত্র দৈনিক শিক্ষাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছিনের মহাসচিব মাওলানা শাব্বির আহমদ মোমতাজী রোববার দৈনিক শিক্ষাকে বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে দৈনিক শিক্ষার প্রতিবেদনে দেখলাম ৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি ও বৈশাখী ভাতার সরকারি অনুমোদন দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। কিন্তু লক্ষ্য করলাম ও চিঠিতে মাদরাসা ও কারিগরির কথা উল্লেখ নেই। এরপরই মন্ত্রী সাথে যোগাযোগ করলাম।

এদিকে মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষকদের জন্য আদেশ জারি না হওয়ায় হতাশা প্রকাশ করেছেন মাদরাসা ও কারিগরির শিক্ষকরা। এদিকে মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের একজন কর্মকর্তা দৈনিকশিক্ষা ডটকমকে জানিয়েছেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে আদেশ জারি হলে দ্রুত সময়ের মধ্যে মাদরাসা শিক্ষকদের প্রবৃদ্ধি ও বৈশাখী ভাতা দেয়ার বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

স্কুল-কলেজের শিক্ষক ও কর্মচারীদের ৫ শতাংশ বার্ষিক প্রবৃদ্ধি ও বৈশাখী ভাতার অর্থ ছাড়ের বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মতি পাওয়ার পর মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রনালয়। সেইসাথে ২০১৮ খ্রিস্টাব্দের ১ জুলাই থেকে কার্যকর করার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতেও বলা হয়। কিন্তু মাদরাসা শিক্ষক ও কর্মচারীদের অর্থ ছাড়ের বিষয়ে এখনো তেমন অগ্রগতি হয়নি। তাই মাদরাসা শিক্ষক ও কর্মচারীদের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছে।

এদিকে বেসরকারি শিক্ষক নেতারা নভেম্বরের বেতনের সাথেই মাদরাসায় কর্মরত শিক্ষক ও কর্মচারীদের পাঁচ শতাংশ বার্ষিক প্রবৃদ্ধি ও বৈশাখী ভাতা দেয়ার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষা বিভাগ ও মাদরাসা অধিদপ্তরের কাছে অনুরোধ জানিয়েছেন।

 

দৈনিক শিক্ষা