বাঙালিয়ান ডেক্সঃ

 

নির্বাচনের সময় অভ্যন্তরীণ কোন্দল মোকাবিলায় আওয়ামী লীগ শক্ত অবস্থানে থাকবে বলে জানা গেছে৷ দলটির নীতিনির্ধারণী ফোরামের সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক এই বিষয়ে ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আওয়ামী লীগ একটা বড় দল৷ এখানে অনেকেই মনোনয়ন চাইবেন৷ সবাইকেতো আর মনোনয়ন দেয়া যাবে না৷ তবে যারা দলের সিদ্ধান্ত মানবেন না, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর দলীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে৷ পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছেও বিষয়টি নিয়ে অভিযোগ জানানো হবে৷ এই ধরনের কোন্দলে যিনিই জড়িত হোন না, তিনি যত বড় নেতাই হোন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে৷”

সর্বশেষ শনিবার রাজধানীর মোম্মদপুর-আদাবর এলাকায় আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশী দুই নেতার সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। সেখানে গাড়ি চাপা পড়ে দুই কিশোর নিহত হয়েছেন৷ তাদের পরিচয় নিয়ে বিভ্রান্তি রয়েছে৷ ওই এলাকার বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক৷ এবার এখানে মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন ঢাকা মহানগর (উত্তর) আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান৷ এই দুই নেতার সমর্থকদের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরেই মোহাম্মদপুর-আদাবর এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছিল৷

আদাবর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাওসার আহমেদ জানান, শনিবার আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধেছিল৷ তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছেন৷ এখনও এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে৷ পুলিশ নজরদারি অব্যহত রেখেছে৷ নতুন করে সংঘাত এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে৷

নির্বাচনের সময় আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দল প্রসঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘নির্বাচনের আগে এমনটাই আমরা দেখে আসছি৷ আর আওয়ামী লীগের মত একটা বড় দলেরতো এই ধরনের সমস্যা হতেই পারে৷ তবে আমি মনে করি সবাইকে দলের সিদ্ধান্ত মেনে নিতে হবে৷ যারা মানবেন না, বুঝতে হবে তারা সুবিধাবাদী৷ এদের ব্যাপারে নীতি নির্ধারকদের সতর্ক থাকতে হবে৷”

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার প্রধান নির্বাচন কমিশনার জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দিয়ে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকেই আওয়ামী লীগের কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে নির্বাচনী উত্তাপ শুরু হয়েছে৷ ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর কার্যালয় থেকে মনোনয়নপত্র বিতরণ করা হচ্ছে৷