গাজীপুরের একটি শ্রমিক কলোনিতে আগুনে একজন নিহত, একজন নিখোঁজ ও শিশুসহ কমপক্ষে চারজন আহত হয়েছে। গতরাতে (২৫ অক্টোবর) গাজীপুর সিটি করপোরেশনের বাসন সড়ক (ঈদগাহ সংলগ্ন ভোগড়া) দক্ষিণপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় সবজি ব্যবসায়ী সবেদ মিয়া (৭০) নিহত এবং তার নাতি শিমুল (৮) দগ্ধ হয়ে আহত হয়। এছাড়াও, সবুজ মিয়া (৪০) নামের এক ব্যক্তি নিখোঁজ রয়েছে বলে স্থানীয়রা দাবি করেছেন। নিহত ব্যবসায়ী সবেদ রংপুর জেলার পীরগঞ্জ থানার ১১নং পাঁচগাছি ইউনিয়নের জাহাঙ্গীরাবাদ সিরারপাড় এলাকার মৃত জাফর মুন্সির ছেলে।

নিহতের ভাগ্নে জহিরুল ইসলামসহ স্থানীয়রা জানান, ভোগড়া দক্ষিণপাড়া এলাকার জরিনা বেগমের জমি ভাড়া নেন স্থানীয় স্বপন মিয়া। স্বপন সেখানে ৩২টি কক্ষ নির্মাণ করে শ্রমিক কলোনি গড়ে তুলেন। গতকাল রাত সাড়ে ৯টার দিকে ওই কলোনির একটি কক্ষে রান্নার সময় গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়।

আগুন মুহূর্তেই পুরো কলোনিতে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় দগ্ধ হয়ে ঘুমন্ত সবেদ মিয়া মারা যান এবং তার নাতি শিমুল (৮)আহত হয়।

গাজীপুর দমকল বাহিনীর উপ-সহকারী পরিচালক আক্তারুজ্জামান জানান, খবর পেয়ে বাহিনীর জয়দেবপুর স্টেশনের দুটি ইউনিটের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় এক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নেভায় এবং হতাহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করে। সেখান থেকে আশংকাজনক অবস্থায় শিশু শিমুলকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে।

আগুন নেভাতে গিয়ে স্থানীয় তিনজন আহত হয়েছেন।

তবে এ ঘটনার পর থেকে সবুজ মিয়া (৪০) নামের এক ব্যক্তি নিখোঁজ রয়েছে বলে স্থানীয়রা দাবি করেছেন। আগুনে ওই কলোনির সব কটি কক্ষের মালামালসহ পুড়ে গেছে।

দ্যা ডেইলী স্টার: