মোঃ নুরনবী ইসলাম, নিজস্ব প্রতিবেদক

দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার কৃতি সন্তান সাবেক ডাকসু সদস্য ও ঢাবির মেধাবী ছাত্র রকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন।

রবিবার রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা যায়।

এর আগে রকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য একাধারে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক, ঢাবির স্যার সলিমুল্লাহ মুসলিম হল শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিনাজপুর জেলা ছাত্রকল্যাণ সমিতির সাবেক সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছিলেন। বর্তমানে তিনি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন অমৃতসূর্যের আহ্বায়ক এবং সাত বছর ধরে প্রধান আয়োজক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন কনসার্ট ফর উষ্ণতার।

ঐতিহ্য খানসামা উপজেলার ভেড়ভেড়ী ইউনিয়নের টংগুয়া গ্রামের এক সম্ভান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা মোজাহারুল ইসলাম বাবুল দীর্ঘদিন থেকে ইউপি সদস্য হিসেবে মানুষের সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন আর মা প্রাইমারি স্কুল শিক্ষিকা। তিনি উপজেলার স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নিউ পাকেরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেন। পরে দিনাজপুরের চেহেলগাজী শিক্ষা নিকেতন থেকে এস.এস.সি, দিনাজপুর সরকারি কলেজ থেকে এইচ এস সি পাশ করেন। এরপর প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পাশ করে বর্তমানে এমফিলে পড়াশোনা করছেন।

কলেজে অধ্যয়নরত অবস্থা থেকেই বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনা ও ছাত্রলীগের প্রতি ভালোবাসার জন্ম থেকেই ছাত্রলীগের যেকোনো মিছিল-মিটিং অংশগ্রহণ করে কখনও আরো পিছনে ফিরে তাকায়নি রকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য।

ছাত্রলীগের নব-নির্বাচিত সহ-সভাপতি রকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য বলেন, আমি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে বিশ্বাসী। আমাকে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সংসদ এর সহ-সভাপতি নির্বাচিত করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদকের প্রতি কৃতজ্ঞ। আমি সহ-সভাপতি হয়েছি সেটা বড় কথা নয়, আমি ছাত্রলীগের জন্য কি দিতে পেরেছি সেটা বড় কথা। আমি ছাত্রলীগের জন্য কাজ করে যাচ্ছি এবং যাব। পদ-পদবি দায়িত্বমাত্র। ভবিষ্যতেও আমি ছাত্রলীগের একজন নিবেদিত কর্মী হিসেবে কাজ করে যেতে চাই।

এদিকে ঐতিহ্য ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় তাঁর জন্মস্থান দিনাজপুরের খানসামা উপজেলাসহ পুরো জেলায় উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে সর্বমহলে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তাকে অভিনন্দন জানাতে শুরু করে শত শত নেতাকর্মী ও শুভাঙ্খাগী।