প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘যারা মানুষ পুড়িয়ে মারে, যারা অগ্নিসন্ত্রাস করে, যারা মানিলন্ডারিং ও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত, যারা এতিমের টাকা চুরি করে খায়, তাদের সঙ্গে ঐক্য করেছেন ড. কামাল হোসেন গং। সঙ্গে জুটেছে কিছু খুচরা আধুলিও।’

রোববার (১৪ অক্টোবর) বিকালে মাদারীপুরের শিবচর এলাকায় এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি কামাল হোসেন সাহেবকে বাহবা জানাই। তবে, তিনি কার সঙ্গে ঐক্য করেছেন? তিনি কাকে নেতা মেনেছেন? যে পলাতক, যে বিদেশে, যে মানিলন্ডারিং কেসে সাজাপ্রাপ্ত। দশ ট্রাক অস্ত্র চোরাকারবারি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত। তার অধীনেই কামাল হোসেন গংরা ঐক্য করেছেন। তারা আজ খুনিদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। ওই খুনিদের তো মানুষ ক্ষমতায় চায় না।’

তিনি বলেন, ‘ড. কামাল হোসেন নৌকা থেকে নেমে এখন ধানের শীষের হাত ধরেছেন। যে ধানে শীষ নেই, চিটা ছাড়া কিছুই নেই। ড. কামাল হোসেন জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে কথা বলেন, অথচ আজ যে বিএনপি-জামায়াত জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে জড়িত, তিনি তাদের সঙ্গে ঐক্য গড়েছেন।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘বিডিআর হত্যাকাণ্ডের সময় খালেদা জিয়া সকাল ৭টায় বাসা থেকে বের হয়ে যান। কেন বের হয়ে গেলেন? এই হত্যাকাণ্ডে তারা যে জড়িত, তাতে কোনও সন্দেহ নাই। নইলে কেন বাসা ছেড়ে চলে গেলেন? এই জবাব খালেদা জিয়াকে দিতে হবে।’

তিনি বলেন, ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে যারা খুন করেছিলো সেই খুনি মোশতাকদের পুনর্বাসন করেছিল জিয়াউর রহমান। আর ২১ আগস্ট আমাকে হত্যা করে আওয়ামী লীগকে নেত্রত্ব শূন্য করতে হামলা করেছিলো খালেদা জিয়া। আইভি রহমানসহ অনেককে তারা খুন করেছে।

‘এমনই এই ভয়াবহ হামলার আলামত নষ্ট করে জজ মিযা নাটক সাজায়।এরা খুনি, ২০০১ সালের নির্বাচনের পর দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় হামলা চালায়। মানুষের ওপর নির্যাতন করে। ২০১৪ সালে অগ্নিসন্ত্রাস করে ৩ হাজার ৮শ’র মতো মানুষকে হত্যা করে। অগ্নি-সন্ত্রাসে যারা বেঁচে আছে তারা মানবেতর জীবন-যাপন করছে।’ জনসভায় সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের কথা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি শিক্ষার প্রসারে প্রত্যেক জেলা উপজেলায় স্কুল-কলেজ সরকারিকরণের বিষয়টিও তুলে ধরেন।

ভবিষ্যতেও উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিতে জনগণের প্রতি অনুরোধ জানান আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

এর আগে তিনি পদ্মা সেতুর মুন্সীগঞ্জের মাওয়া ও শরীয়তপুরের জাজিরা অংশ পরিদর্শন করেন।