মোঃ নুরনবী ইসলাম, নিজস্ব প্রতিবেদক

দিনাজপুরের খানসামা উপজেলা ছাত্রলীগের নবগঠিত কমিটি প্রত্যাখ্যান করে নতুন কমিটি পুর্ণগঠনের দাবি জানিয়ে বিভিন্ন ইউনিটের ২৬ ছাত্রলীগ নেতা পদত্যাগ করেছে।

খানসামা উপজেলা প্রেসক্লাব কার্যালয়ে সোমবার রাতে সংবাদ সন্মেলন করে কমিটি পুর্নগঠনের দাবিতে ভেড়ভেড়ী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক সাজ্জাদ ইসলাম ও পদত্যাগকারী নেতাদের মধ্যে আলোকডিহি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মির্জা মান্নু লিখিত বক্তব্যে বলেন, গত ২৪ ডিসেম্বর আগের আহবায়ক কমিটি ভেঙ্গে নিয়ম বর্হিভূতভাবে নতুন আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। এই নতুন কমিটিতে যারা মুজিব আদর্শ লালন করে ছাত্রলীগের রাজনীতি করে তাদের সঠিক মূল্যয়ন না করে ছাত্রদল নেতা আবু নাসের সরকারসহ স্থানীয় সাংসদের বাইরে রাজনীতি করা এবং জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদকের নিজস্ব ব্যক্তিদের দিয়ে স্বজনপ্রীতি করে নতুন কমিটিতে যুগ্ন আহবায়ক করা হয়। এ বিষয়সমূহকে কেন্দ্র করে গত ২৫ ডিসেম্বর থেকে খানসামা উপজেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের সভাপতি, সাধারন সম্পাদক, আহবায়ক, যুগ্ন আহবায়কসহ ২৬ জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী পদত্যাগ করেন।

তারা হলেন, আলোকঝাড়ি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক নুর ইসলাম, ভেড়ভেড়ী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ ও সবুজ ইসলাম, খামারপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহবায়ক সবুজ হোসেন, যুগ্ন আহবায়ক আরিফুল ইসলাম ও রয়েল ইসলাম, আঙ্গারপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সদস্য এস.কে আমিনুল ইসলাম, আঙ্গারপাড়া ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি বিজয় সংকর, গোয়ালডিহি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ডালিম চন্দ্র রায় ও সদস্য ফারুক হোসেন, পাকেরহাট সরকারী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ন আহবায়ক মিলন রায়, উত্তর ভেড়ভেড়ী বি.এম কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আবুল কালাম, পাকেরহাট কারিগরি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মিলন, জমিরউদ্দীন শাহ বালিকা স্কুল এন্ড কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি তানিয়া আক্তার, সেল্টুশাহ্ ফাজিল মাদ্রাসা শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মাজেদুল ইসলাম, হোসেনপুর ডিগ্রী কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মাসুদ রানা, কাচিনীয়া স্কুল এন্ড কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শওকত আলী, আলোকডিহি আইডিয়াল কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মির্জা মান্নু, বাংলা ভাষা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আলমগীর ইসলাম ও সাধারন সম্পাদক মশিউর রহমান, গোলাম রহমান ফাজিল মাদ্রাসা শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ময়নদ্দিন ইসলাম, পাকেরহাট কামিল মাদ্রাসা শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক সফুর, গোয়ালডিহি টেকনিকাল বিএম কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক লাবু ইসলাম। তারা সকলে জেলা ছাত্রলীগকে ধিক্কার জানিয়ে পদত্যাগ করেন।

এ বিষয়ে নবগঠিত কমিটির যুগ্ন আহবায়ক আবু নাসের সরকার বলেন, আমি কখনো ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত ছিলাম না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আগে থেকে বঙ্গবন্ধুর ছাত্রলীগকে ভালবাসি। সেই ভালবাসা থেকেই ঢাবি ক্যাম্পাসে ও উপজেলায় আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও এমপি মহোদয়ের মিছিল, মিটিং-এ অংশগ্রহন করে ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে ইতিবাচক কাজের সাথে সর্বদাই ছিলাম। আমাকে নিয়ে বিভ্রান্ত ছড়ানো হচ্ছে। এটা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।

তবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন বলেন, ভার্সিটিতে পড়াকালীন আবু নাসের সরকার কি করেছে তা জানি না। কিন্তু এলাকায় আসলে তিনি তো নিয়মিত আওয়ামীলীগ ও ছাত্রলীগের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে দেখা যেত। এমনকি জাতীয় ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও নৌকার পক্ষে কাজ করতে দেখা গেছে।

দিনাজপুর জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক গোলাম ইমতিয়াজ ইনান বলেন, এ ধরনের কোন পদত্যাগ পত্র পাই নি। তবে কমিটির বিষয়ে যদি কোন নির্দিষ্ট প্রমাণাদিসহ অভিযোগ পাই তাহলে বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।