প্রকাশিত : ২০ অক্টোবর ২০১৮,

কেউ এসেছিলেন ফুল হাতে। কেউ গিটার পিঠে ঝুলিয়ে। শেষবারের মতো বাংলাদেশের ব্যান্ড সংগীতের কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি শ্রদ্ধা জানালেন হাজারো ভক্ত-অনুরাগীরা। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে শুক্রবার সকাল সোয়া ১০টায় নেওয়া হয় আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ।

সেখানে সর্বস্তরের মানুষের ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত হন এ গিটার জাদুকর। মরদেহে শ্রদ্ধা জানায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, ডিরেক্টরস গিল্ডসহ অনেক সংগঠন।

কিন্তু সেখানে দেখা যায়নি চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট কোনো সংগঠনের নেতা কর্মীদের। অনেকের প্রশ্ন আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুর শোক যেন পৌঁছায়নি চলচ্চিত্রপাড়ায়। ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে দায় সেরেছেন সেখানকার মানুষেরা। তাকে কাল হাসপাতালে দেখতে যাননি চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট কেউ, পাওয়া যায়নি কোনো আনুষ্ঠানিক বিবৃতিও।

আজ শহীদ মিনারেও জাতির পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য যখন আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ শহীদ মিনারে আনা হয় তখনও দেখা মিলেনি চলচ্চিত্রের কোনো সংগঠনকে। চোখে পড়েনি তেমন কোনো চলচ্চিত্র তারকাকেও। আইয়ুব বাচ্চুর মতো একজন কিংবদন্তির, সিনেমার মানুষের বিদায়ে চলচ্চিত্রপাড়ার এই নিরবতা ক্ষুব্দ করেছে সবাইকে। হয়েছেন অবাকও।

উল্লেখ্য, চলচ্চিত্র নির্মাতা কাজী হায়াতের ‘লুটতরাজ’ সিনেমায় ‘অনন্ত প্রেম তুমি দাও আমাকে’ গান দিয়ে নব্বই দশকের শুরুতে সিনেমার গানে আসেন আইয়ুব বাচ্চু।

এরপরের গল্পটা ইতহাস। আইয়ুব বাচ্চু গান করেছেন অসংখ্য সিনেমায়। তিনি উপহার দিয়েছেন ‘আম্মাজান’র মতো ইতিহাস সৃষ্টি করা গান। এই গান শুনেনি এমন শ্রোতা খুঁজে পাওয়া মুশকিল। এই গান বেজেছে হাটে মাঠে-ঘাটে। এছাড়াও আইয়ুব বাচ্চু গেয়েছেন ‘স্বাগরিকা’, ‘এক ঝাঁক পাখি উড়ে আকাশে’, ‘স্বামী আর ইস্তিরি বানাইছে কোন মিস্তিরি’, ‘এই জগতও সংসারে তুমি এমনও একজন’সহ জনপ্রিয় গান।

সিনেমার গান গেয়ে তিনি ছিলেন সিনেমার মানুষও। তবে শোনা যাচ্ছে, চ্যানেল আইতে আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহে ফুল দিতে যেতে পারে শিল্পী সমিতি। শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা নিবেদন আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ নিয়ে যাওয়া হচ্ছে জাতীয় ইদগাহ ময়দানে। সেখানে জানাজা শেষে চট্টগ্রামে নিয়ে যাওয়া হবে বাচ্চুকে। মায়ের কবরের পাশেই সমাহিত করা হবে কিংবদন্তী এ শিল্পীকে।