মোহাম্মদ মানিক হোসেন:

দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে ৪ বছরের এক শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগ উঠেছে একই গ্রামের কিশোর গ্যাং এর মূলহোতা এক যুবকের বিরুদ্ধে। উপজেলার সাতনালা ইউনিয়নের কদমতলী গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কোনো আইনি ব্যবস্থা না নিয়ে মীমাংসার চেষ্টা করছেন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান।

স্থানীয়রা জানায়, ভুক্তভোগী শিশুটি তার দুর্ভোগের কথা জানান স্বজনদেরকে। সে জানায় মমিনুল ইসলাম মুন্না (১৮) নামে এক যুবক গত ৩০ ডিসেম্বর বুধবার সকালে বাড়ির পাশের একটি বাঁশ ঝাঁড়ে তাকে ডেকে নেয়। সেখানেই তাকে বলাৎকার করা হয়।

এ সময় তার চিৎকারে প্রতিবেশী আকলিমা ও আফরোজা ছুটে আসলে মুন্না পালিয়ে যান। এলাকাবাসী জানায়, মুন্নার বিরুদ্ধে এর আগেও অনেক চুরি ও ইফটিজিং এর অভিযোগ রয়েছে। মুন্না সাতনালা ইউপির ১নং ্ওয়ার্ডের বাঘাপন্ডিত পাড়ার জাহিদুল ইসলামের ছেলে। তবে ঘটনার পরদিন থেকে মুন্নাসহ মুন্নার পরিবার পলাতক রয়েছে বলে জানাগেছে।

এ ঘটনা এলাকায় জানাজানি হলে বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি না করতে শিশুটির পরিবারকে আপস মিমাংসার কথা বলে বিষয়টি ধামাচাপা দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে ওই এলাকার কিছু স্থানীয় কু-চক্র মহল।

ভুক্তভোগী শিশুর বাবা জানান, স্থানীয় ভাবে বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যানকে জানিয়েছি। কিন্তু দুদিন পেরিয়ে গেলেও কোন বিচার এখনো পাইনি। আগামীকাল শনিবার চিরিরবন্দর থানায় তার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি গ্রহন করা হবে বলে জানান তিনি ।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হক শাহ্ এর সাথে কথা হলে তিনি জানান, ঘটনার পরদিন থেকে তারা সবাই পলাতক রয়েছে। তাদের খোঁজ পেলে দু- পক্ষে বসে বিষয়টি নিয়ে মীমাংসা করার চেষ্টা চলছে।

তবে বলাৎকারের ঘটনায় কেন মীমাংসা হবে, কেন আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে না-সে বিষয়ে প্রশ্নের জবাব পাওয়া যায়নি ওই এলাকার জনপ্রতিনিধির কারও কাছে।