মোহাম্মদ মানিক হোসেনঃ

পুকুর থেকে ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করায় দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে  ফসলি জমি ও প্রায় শতাধিক ঘরবাড়ি বিলীন হওয়ার আতংকে দিন কাটাচ্ছে গ্রামবাসী।

উপজেলার ইসবপুর ইউপির পার্বতীপুর  চিরিরবন্দর সীমান্তে চকসুদাম এলাকায় প্রকাশ্যে দিবালোকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন কাজ দিব্যি চললেও জমির মালিক প্রভাবশালী হওয়ায় কোন বাধায় কাজে আসছেনা।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, ওই জমির মালিক খতিবুর রহমান কাচু স্থানীয় বালু ব্যবসায়ী আবু বক্কর সিদ্দিক কালুয়ার মাধ্যমে প্রভাব খাটিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন অব্যাহত রেখেছে।

কেউ বাধা দিলে হুমকি ধামকি প্রদর্শন করছে। বালু উত্তোলনের ফলে আশের পাশের ফসলি জমি ভাঙ্গনের কবলে পড়েছে। হুমকির মুখে পড়েছে বসত ভিটা। মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করায় দুপাশের মাটি ধসে গেছে।

বালু উত্তোলন বন্ধে মেম্বার-চেয়ারম্যান, উপজেলা প্রশাসনের কাছে স্থানীয়রা অভিযোগ করা সত্বেও কোন প্রতিকার মিলছেনা।

পাশের জমির মালিক জাহাঙ্গির, মোজাম্মেল হক, আব্দুল হামিদ ও আজিজার রহমান বলেন, খতিবুর রহমান কাচু অবৈধভাবে বালু তুলে লাখ লাখ টাকায় বিক্রি করে আসছে। প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে কেউ তার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে পারে না। তারা আশংকা করছেন এভাবে বালু উত্তোলন চলতে থাকলে পুরো এলাকাই এক সময় ধসে যাবে।

ইউপি চেয়ারম্যান আবু হায়দার লিটন জানান, বালু ব্যবসায়ী আবু বক্কর সিদ্দিক কালুয়ার বিরুদ্ধে এর আগেও একই কারনে সেখানে আমিসহ পুলিশ গিয়ে বালু উত্তোলন বন্ধের জন্য বলেছিলাম কিন্তু কোন কাজ হয়নি। বর্তমানে এলাকাবাসী আবারো বালু উত্তোলন বন্ধে বিভিন্ন জায়গায় অভিযোগ দাখিল করেছে।