মোহাম্মদ মানিক হোসেনঃ

মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের (দ্বিতীয় পর্যায়) প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে চিরিরবন্দর উপজেলায় ১৩০টি পরিবারকে ঘর প্রদান করা হবে।

শুক্রবার বিকালে তার নিজ কার্যলয়ে এসব তথ্য জানান উপজেলা নির্বাহী অফিসার আয়েশা সিদ্দীকা।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার পূরণে ঘর নির্মাণের পূর্ব থেকে প্রতিটি মুহূর্তে আমাদের উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা সার্বিকভাবে তদারকি করছেন। তারা এর জন্য কঠোর পরিশ্রমও করছেন। প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নই হচ্ছে আমাদের প্রেরণার উৎস। কাজ করতে আমাদের কোন ক্লান্তি ও অবসরও নেই।

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের এসব ঘর নির্মাণসামগ্রী মানসম্মত বিষয়ে ইউএনও বলেন, আমরা গৃহ নির্মাণ করার সময় বারবার প্রত্যেকটি সামগ্রী যাচাই-বাছাই করে কাজ করেছি। যাদের এসব ঘর দেয়া হয়েছে, সেসব ঘর রেজিস্ট্রেশন করে দেয়া হয়েছে। ওই দলিলে উল্লেখ রয়েছে কোনভাবেই এসব ঘর হস্তান্তরযোগ্য নয়।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, দ্বিতীয় পর্যায়ে উপজেলার ১২ টি ইউনিয়নে ১৩০টি ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের জন্য খাস জমিতে সেমি পাকা ঘর নির্মাণ কাজ করছে উপজেলা প্রশাসন।

প্রত্যেক ভূমি ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ খাস জমি বন্দোবস্ত করে ওই জমির ওপর ঘর তৈরি করে দেয়া হচ্ছে। দুই কক্ষ বিশিষ্ট প্রতিটি সেমি-পাকা ঘরের নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা। সরকারি নির্ধারিত নকশা অনুযায়ী সবগুলো ঘর তৈরি করা হচ্ছে। এসব ঘরে দুটি সেমি-পাকা ঘর, রান্নাঘর, সংযুক্ত টয়লেট,বিদ্যুৎ ও নলকূপসহ অন্যান্য সুবিধা রয়েছে। প্রত্যেক সুবিধাভোগীর নামে সরকারি ২ শতাংশ জমির বন্দোবস্ত দলিলসহ ২০ জুনের মধ্যে সকল কাজ সম্পন্ন করে সুবিধাভোগী পরিবারের কাছে ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হবে।