একটি মানবিক আবেদন!! লেখাটি ফেইসবুক থেকে নেওয়া” ছবি – প্রতিকী।

 

আজ থেকে ১৬ বছর আগের ঘটনা। সালটি ছিল ২০০৩  ঘটনাস্থল রাণীরবন্দর বাজার, চিরিরবন্দর,দিনাজপুর।

কোন এক কারণে স্থানীয় মাংসের দোকানদার এবং প্রশাসনের মধ্যে বিবাদ ঘটে  এক পর্যায়ে  প্রশাসন গুলি চালাতে বাধ্য হয়। গুলিতে ঝরে পরে খেটে খাওয়া তরতাজা পথচারী নিরীহ এক যুবকের প্রাণ।

এতিম হয়ে পরে যুবক ভাইটির ১০ মাসের ফুটফুটে এক কন্যা সন্তান। বাবা মারা যাওয়ার পর শিশুটির মাকে নানা নানি অন্যত্র বিয়ে দিয়ে দেয়। অতঃপর নানা নানীর সংসারে এতিম শিশুটি বড় হতে থাকে।

সেইদিনের এই এতিম শিশুটি এখন যুবতী। নাম তার সাজেদা বানু। আর কদিন পর সাজেদা বানুর বিয়ে।

মেয়েটি আমাদের শ্রদ্ধাভাজন প্রবীন সাংবাদিক ফজলুর রহমান ভাইয়ের আপন ভাতিজি। বলা যায় বর্তমান কর্মক্ষম অভিভাবক বলতেই উনি।

বিয়েতে যৌতুক না লাগলেও আমাদের সামাজিক প্রেক্ষাপটে বর পক্ষকে কিছু না কিছু উপহার দিতে হয় কন্যার অভিভাবকদের পক্ষ থেকে। বিয়ের অনুষ্ঠান বাবদ আনুমানিক বাজেট ধরা হয় ১ লাখ ২০ হাজার।

টাকা যোগানোর জন্য সাংবাদিক ফজলু ভাই ইতিমধ্যে ৫০ হাজার টাকা দিয়ে নিজের একটা গরু বিক্রি করে দেন। আর আমরা চিরিরবন্দর বার্তা পরিবার, চিরিরবন্দর ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ইসলামী ব্যাংক এজেন্ট শাখা ঘুঘুরাতলী, প্রস্তাবিত সাইন্স এন্ড টেকনোলজি ইন্সটিটিউট, গ্রীন ল্যান্ড রেসিডেন্সিয়াল মডেল কলেজ কর্তৃপক্ষ ১৫ হাজার টাকা দেওয়ার ওয়াদা করে।

এরপরেও ৫৫ হাজার টাকা শর্ট। আপনাদেরে কারো যদি সার্মথ্য হয়, এতিম  বোনটির বিয়ের জন্য সহায়তা করার অনুরোধে রইলো।

যোগাযোগ -:
১) সাংবাদিক ফজলুর রহমান ভাই
01710607228
বিকাশ নাম্বার – 01517864582