বেলজিয়ামে অবস্থিত বিশ্বের ১১০টি দেশের অর্থোপেডিক সার্জনদের নিয়ে গঠিত আন্তর্জাতিক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি অব অর্থোপেডিক সার্জারি অ্যান্ড ট্রমালোজি (SICOT) এর ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় বাংলাদেশের বিশিষ্ট অর্থোপেডিক সার্জন, বাংলাদেশ অর্থোপেডিক সোসাইটির সাবেক সভাপতি ও ল্যাবএইড হাসপাতালের অর্থোপেডিক ও আর্থোপ্লাস্টি সেন্টারের চিফ কনসালট্যান্ট ও বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. এম আমজাদ হোসেনকে চিরিরবন্দর-খানসামাবাসীর পক্ষ হতে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। শনিবার (২১ নভেম্বর) সকালে স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান আমেনা-বাকী রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজের এবি হলরুমে সংবর্ধনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

চিরিরবন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আয়ুবুর রহমান শাহয়ের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক নাদির হোসেন।

আমেনা-বাকী রেসিডেন্সিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক রনজিৎ রায়ের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চক্ষু বিভাগের চিকিৎসক ডা.হারেসুল রহমান হীরু, উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা আবু হোসেন শাহ, সাইতাড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মনমোহন রায়, এবি ফাউন্ডেশনের সদস্য জয়ন্ত কুমার রায়, আওয়ামী লীগ নেতা মকবুল হোসেন, দুলাল হোসেন সহ আরো অনেকে।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন আমেনা-বাকী রেসিডেন্সিয়াল স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান, দিনাজপুর নিউজ ২৪.কমের প্রকাশক রোকমুনুর জামান রনি।  বক্তব্যের শেষে সিকোট এর নব-নির্বাচিত ভাইস-প্রেসিডেন্ট অধ্যাপক ডা.এম আমজাদ হোসেনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাগণ, চিরিরবন্দর-খানসামার বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ, এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, দিনাজপুর প্রেসক্লাব, চিরিরবন্দর অনলাইন প্রেসক্লাব, স্থানীয় ব্যবসায়ীগণ, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন পাশে দাঁড়াও, আমেনা-বাকী রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল এন্ড কলেজ, এবিয়ান পরিবার সহ কয়েকটি সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান।

উল্লেখ্য, অর্থোপেডিক সার্জন অধ্যাপক ডা. এম আমজাদ হোসেন একজন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা। স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় ঊরুতে গুলিবিদ্ধ হলে ভারতের সামরিক হাসপাতালে দীর্ঘদিন চিকিৎসাধীন ছিলেন। পরবর্তীকালে বঙ্গবন্ধুর আমন্ত্রণে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা দিতে দেশে আসা আন্তর্জাতিক বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জন ডা. আর জে গাস্টের অধীনে অর্থোপেডিক চিকিৎসা শুরু করেন। তাঁর নেতৃত্বে দেশে কোমর ও হাঁটু প্রতিস্থাপন (হিপ অ্যান্ড নি রিপ্লেসমেন্ট) সার্জারিতে এসেছে বৈপ্লবিক সাফল্য। আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে এ পর্যন্ত সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি এ ধরনের সার্জারি সম্পন্ন করেছেন। তিনি একজন সমাজ সেবকও। উত্তরের জেলা দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে উপজেলায় তিনি গড়ে তুলেছেন স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আমেনা-বাকি রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ তিনি এবি ফাউন্ডেশনেরও প্রতিষ্ঠাতা।