নিজস্ব প্রতিবেদক

আজব এই দুনিয়ায় কতো বিচিত্র পেশার মানুষই না আছে। এরমধ্যে কিছু অদ্ভুত পেশার কথা শুনলে আপনি অবাকই হবেন। আর মনেমনে ভাববেন পৃথিবীতে এমনও কি হয়।

তেমনি একটি পেশার নাম হলো ‘কান্না’। অর্থাৎ কান্না করে জীবিকা নির্বাহ। ঘানার একদল নারী একত্রিত হয়ে অদ্ভুত এই পেশা বেছে নিয়েছে। নিজেদের জীবনযাত্রার মানের পরিবর্তন ঘটয়েছে। তবে তারা যেনতেন কারণে কান্না করে না। মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে তারা দলবেঁধে কান্না করে। এই নারীরা একযোগে মৃতের শবযাত্রা অনুষ্ঠানে কান্না করে।

মৃত্যু ব্যক্তি তাদের অপরিচিত হলেও তাদের কাঁদতে আপত্তি নেই। তারা মৃত্যু ব্যক্তির শবযাত্রাই একদম নিকটাত্মীয়র মতো কান্নাকাটি করে। অশ্রুজলে শোকের মাতম বাড়িয়ে তুলে।

বিষয়টা অনেকটা এমন, আপনার অনেক টাকা আছে কিন্তু আপনাকে পছন্দ করে এমন লোকের সংখ্যা খুব কম। এ কারণে আপনি ভাবছেন মারা যাওয়ার পর আপনার অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠানে শোক করার মতো তেমন কেউ থাকবে না। এজন্য আপনি আগেভাগেই শরণাপন্ন হতে পারেন এই নারীদের কাছে।

তারা সকলে মিলে একটা সংস্থা গড়ে তুলেছে। তাদের সংস্থার নাম ‘দ্য ফিউনেরাল কন্ট্রাকস এসোসিয়েশন’। তারা টাকার বিনিময়ে এমন সব মৃত মানুষের জন্য অঝোরে কাঁদেন যাদের সঙ্গে তাদের পরিচয় পর্যন্ত নেই। স্বামী মারা যাওয়ার পরকয়েকজন বিধবা নারী মিলে সর্বপ্রথম এই উদ্দ্যেগ গ্রহন করেন।

একটা শবযাত্রায় তারা কত পারিশ্রমিক নেবেন তা নির্ভর করে অনুষ্ঠানটির আকৃতির উপর। তবে কোন মৃত ব্যক্তি যদি জীবদ্দশায় শর্ত দেয় তার শবযাত্রাটি হবে উৎসবমুখর। তাতেও কোন সমস্যা নেই। মনোমত পারিশ্রমিক পেলে এই সংস্থার নারীরা শবযাত্রায় নাচ-গান করে সেই উৎসবও মাতিয়ে তুলতে পারে। তবে আফসোস একটাই, যেই মৃত ব্যক্তিকে ঘিরে এত কিছু আয়োজন তিনি তা বুঝতেও পারবেন না।