গিনেস বুকে নাম উঠাতে এক মিনিটে ১২৪ বার ‘পুশআপ’ দিয়েছেন নাসির নামে দিনাজপুরের এক যুবক। মিরপুর স্টেডিয়ামের জিমনেশিয়ামে তার এ প্রচেষ্টা দেখে মুগ্ধ ক্রিকেটার ও ট্রেনাররা। তারা বলছেন, সুস্থ থাকতে শুধু খেলোয়াড় নয় সবাইকে ফিটনেসে মনোযোগী হওয়া উচিত। গিনেস বুকে নাম উঠিয়ে জনপ্রিয় হতে চান নাসির।

বিসিবি’র জিমে অপরিচিত একজনকে ঘিরে আগ্রহ। ক্রিকেটার, কোচ, কর্মকর্তা সবাই মনোযোগী। একটু অবাক লাগছে? আরও অবাক লাগার কথা যখন ক্রিকেটাররাই সেলফি তোলেন অপরিচিত সে যুবকের সঙ্গে।

জানা গেলো, নাসিরের বহুদিনের স্বপ্ন। পুশ আপ দিয়ে নাম উঠাবেন গিনেস বুকে। কিন্তু পাচ্ছিলেন না কাঁধে হাত রাখার মত কাউকে। শেষ পর্যন্ত এগিয়ে এলেন বিসিবির কিছু চেনা মুখ। যে কথা সে কাজ। ক্যামেরা বসিয়ে হয়ে গেলো গিনেস বুকে নাম উঠানোর চেষ্টা।

সাড়ে তিন বছর আগে আমি দেখতে পেলাম এটার ওয়ার্ল্ড রেকর্ড আছে। সেসময় থেকে আমার ইচ্ছা জাগল আমি একটা ওয়ার্ল্ড রেকর্ড করবো। পরে আমি ১০১ বারের রেকর্ড ভাঙতে চেয়েছিলাম। পরে দেখি সেটা একজন ভেঙে ফেলেছে। পরে যিনি রেকর্ড ভেঙেছে তার সঙ্গে আমরা যোগাযোগ করি এবং তার পরামর্শ নিয়েছি।

ক্রিকেটাররা এতো আগ্রহী কেন? নাসিরের ফিটনেস মুগ্ধ করার মত। ২২ গজে এই ফিটনেসটাই তো ক্রিকেটারদের রসদ যোগায়। কারণটা হয়ত সেখানে।

আল আমিন বলেন, ফিটনেসের কারণে তিনি এই কাজটি করেছি। সেই সঙ্গে আমরা যারা খেলোয়াড় আছি। তাদেরও ফিটনেস নিয়ে কাজ করা উচিত।

ফিনটেস ট্রেনাররাও মুগ্ধ নাসিরের চেষ্টায়। মানসিক ও শারীরিক সুস্থতার জন্য ফিট থাকা জরুরি সবার জন্য।