বাঙালিয়ান ডেস্ক:

গত এক দশক ধরেই ফুটবল বিশ্বে রাজত্ব করে আসছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো ও লিওনেল মেসি। এ সময়ের মধ্যে দুইজনই জিতেছেন পাঁচটি করে ব্যলন ডি’অর। আর এ কথাটাই বেশ গর্বের সঙ্গেই বলেছেন রোনালদো। সর্বোচ্চ পর্যায়ে টানা ১০ বছর ফুটবল খেলার সামর্থ্য কেবল তাদেরই ছিল বলে জানান তিনি।

সম্প্রতি ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকীকে এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলছেন রোনালদো। সেখানে ব্যলন ডি’অর জয়ের সম্ভাব্য খেলোয়াড়দের নাম জানান তিনি। তাতে লুকা মদ্রিচ, মোহাম্মদ সালাহ, আঁতোয়া গ্রিজম্যান, রাফায়েল ভারানে এবং কিলিয়ান এমবাপের রয়েছে।তবে তাদের টানা ১০ বছর সামর্থ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন রোনালদো, ‘কজন খেলোয়াড় ১০ বছরের বেশি সময় শীর্ষ পর্যায়ের ফুটবলে নিজেদের মান ধরে রাখতে সক্ষম?’

উত্তরটা নিজেই দেন রোনালদো, ‘আপনি তা হাতে গুনতে পারবেন। মাত্র দুই জন। মেসি এবং আমি।’

চলতি মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে নাম লিখিয়েছেন রোনালদো। নতুন ক্লাবে শুরুটা ভালো না হলেও ধীরে ধীরে স্বরূপে ফিরেছেন তিনি। দারুণ ছন্দে থাকা এ খেলোয়াড়কে পেতে ১০০ মিলিয়ন পাউন্ড খরচ করেছে ইতালির ক্লাবটি। এটাও উল্লেখ করে অন্য খেলোয়াড়দের সঙ্গে নিজেকে তুলনা করেছেন রোনালদো, ‘আমার বয়সে কোনো খেলোয়াড়ই ১০০ মিলিয়নে অন্য ক্লাবে যোগ দিতে পারেনি। অন্যদের প্রতি সম্মান রেখেই বলছি, আমার বয়সে তারা চীন, আরব আমিরাত কিংবা ভারতে যায় ক্যারিয়ার শেষ করতে। এবং নিজের খেলার মানটা ধরে রাখতে পারে না।’

বর্তমানে রোনালদোর বয়স ৩৩। ক্যারিয়ারের প্রায় শেষ দিকে চলে আসলেও খেলে যাচ্ছেন তরুণদের মতোই। আর কয়েক বছর পর ফুটবলটা ছাড়তে হবে তাকে। শেষ দিকেও মান বজায় রেখে খেলার প্রত্যয়টা প্রকাশ করেন এ পর্তুগিজ, ‘একদিন এই সময় আসবে। হয়তো চার, পাঁচ কিংবা ছয় বছরের মধ্যে… আপনারা তা ঠিকই দেখবেন।’

২০১৮ সালে মেসি-রোনালদোর রাজত্বে হানা দিয়েছেন লুকা মদ্রিচ। ফিফার বর্ষসেরা খেতাব জিতেছেন। জিতেছেন ইউরোপের সেরা খেলোয়াড়ের পুরষ্কারও। কদিন পর ঘোষণা করা হবে ব্যলন ডি’অর জয়ীর নাম। তারও অন্যতম দাবীদার তিনি। তবে পুরস্কারের দাবীদার নিজেকেই বললেন রোনালদো, ‘অনেকবারই বলেছি, ব্যলন ডি’অর জয়ের জন্য আমি মোহাবিষ্ট নই তবে আমার মনে হয় এ পুরষ্কার আমার প্রাপ্য।’

ডেইলী স্টার