ভারতের উত্তরাখণ্ড রাজ্যে পৌরসভা নির্বাচনে বড় ধরনের ধাক্কা খেয়েছে বিজেপি। বুধবার এ রাজ্যের ৮৪টি পৌরসভা নির্বাচনের ফলাফলে দেখা গেছে, ৩৪টি পৌরসভা দখল করতে পেরেছে বিজেপি। বাকি ৫০টি পৌরসভার দখল নিয়েছে বিরোধী কংগ্রেস এবং নির্দল। খবর: আনন্দবাজার পত্রিকা

অথচ মাত্র এক বছর আগেই উত্তরাখণ্ড রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে গেরুয়া ঝড় দেখা গিয়েছিল।

এ রাজ্যে ৭০টি বিধানসভা আসনের মধ্যে ৫৭টি আসনেই জয়ী হয়েছিলেন বিজেপি প্রার্থীরা।

উত্তরাখণ্ডের মুসৌরিতে একেবারে ধুয়েমুছে গিয়েছে বিজেপি। নির্দল প্রার্থীদের পাশাপাশি মুসৌরির দখল নিয়েছে কংগ্রেস। মুসৌরি হারের দিনেই বিজেপি বিধায়ককে হেনস্তার অভিযোগ উঠেছে কংগ্রেস কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

অভিযোগ, দেহরাদূনের একটি গণনাকেন্দ্রে ‘বিতর্কিত’ বিজেপি বিধায়ক গণেশ যোশী জোর করে ঢুকতে গেলে বাধা দেন তারা। এমনকি, গণেশ যোশীর সঙ্গে ধস্তাধস্তিও হয় কংগ্রেস কর্মীদের।

উত্তরকাশী জেলাতেও ভোটের ফলাফলে একই ছবি দেখা গিয়েছে। মোট ৩৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে ২৫টি ওয়ার্ড জিতেছেন নির্দলেরা। চিন্যালিসৌড়ের চেয়ারম্যান পদে জয়ী হয়েছেন নির্দল প্রার্থী। দেহরাদূন পৌরসভার ৩৪টি ওয়ার্ডে বিজেপি প্রার্থীদের সঙ্গে কংগ্রেসের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়েছে। সেখানে কংগ্রেস জিতেছে ১৫টি আসন। অন্যদিকে বিজেপি পেয়েছে ১৪টি ওয়ার্ড। নির্দল প্রার্থীরা জিতেছেন ৫টি আসন।

উত্তরাখণ্ডের শহরে এলাকাতেই ধাক্কা খেয়েছে বিজেপি। চম্পাবতের মতো গুরুত্বপূর্ণ পৌরসভার চেয়ারম্যান হবেন কংগ্রেস প্রার্থী।

রোববার রাজ্যের ৮৪টি পৌরসভাসহ সাতটি মিউনিসিপ্যাল করপোরেশন, ৩৯টি মিউনিসিপ্যাল কাউন্সিল এবং ৩৮টি গ্রাম পঞ্চায়েতের জন্য ভোট হয়। তাতে রেকর্ড সংখ্যক ৬০ শতাংশেরও বেশি ভোটারের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। মঙ্গলবার গণনা শুরু হয়। পৌরসভার ভোটের ফলাফল প্রকাশের পর দেখা যায়, রাজ্যের ক্ষমতাসীন বিজেপি দল কার্যত জোর ধাক্কা খেয়েছে।