সাতক্ষীরা সংবাদদাতাঃ 

জমি নিয়ে দুদলের বিরোধের জেরে’ সাতক্ষীরার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের শিশু সাংবাদিকদের কার্যালয় ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ‘প্রাণকেন্দ্র’ ভাংচুর ও লুটপাট করেছে একদল হামলাকারী।

মঙ্গলবার জেলা শহরের বনানী মার্কেটে এ ঘটনা ঘটে বলে সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান জানান। এই কার্যালয় থেকে সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ‘প্রাণকেন্দ্র’ ও বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ও এর শিশু সাংবাদিকতার সাইট ‘হ্যালো’র কার্যক্রম পরিচালিত হয়।

হামলাকারীরা ক্যামেরা, ল্যাপটপ, হারমোনিয়াম, তবলা, চেয়ারসহ মূল্যবান জিনিস লুট করেছে বলে ওসি জানান। সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ বলেন, ভবনের কক্ষটি ভাড়া দিয়েছেন পলাশপোল এলাকার আব্দুল জলিল। আব্দুল জলিলের সঙ্গে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ রয়েছে আলবারাকা শপিং মলের মালিক বুলুর।

“এই বিরোধের জেরে বুলু ও তার লোকজন ভবনটির ছাদ ভেঙে এই কার্যালয়ে হামলা করে ভাংচুর ও মালামাল লুট করেছে।” সদর থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মমতাজ বাপীসহ সাংবাদিকরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক মোস্তফা কামাল বলেন, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধে মালিকানা বুঝে নেয়ার বিষয় কিন্তু ভাড়াটিয়াকে চলে যেতে সময় দেয়ার বিষয়টি অবশ্যই থাকে।

এভাবে ভাড়াটিয়ার কক্ষ ভাঙচুর ঠিক না। আবুল কালাম বলেন, দিনদুপুরে ভবনের ছাদ ভেঙে ভাংচুর ও জিনিসপত্র লুটপাট করে নিয়ে যাওয়ার ঘটনাটি শুধু অন্যায় নয় অপরাধও।

সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ দিলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি শরীফুল্লাহ কায়সার সুমন বলেন, “মালিকানা বিরোধ থাকলে আমাদের জানালেই আমরা আমাদের জিনিসপত্র সরিয়ে ফেলতে পারতাম।

আমাদের অনুপস্থিতিতে ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনায় আমরা হতবাক হয়েছি।” এই ক্ষয়ক্ষতির ঘটনায় তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।